Android ফোন Root এর ৫টি সু চমৎকার সুবিধা! জেনে নিন।

আসসালামু আলাইকুম।
আমি ShanTo. আজকে আমরা আলোচনা করবো Adroid ফোন Root করার সুবিধা।
তো চলো শুরু করি।

১. হিডেন ফিচার আনলক :

রুট করার মাধ্যমে আপনি এন্ড্রয়েড ডিভাইসের কিছু হিডেন ফিচার আনলক করতে পারেন। মাঝে মাঝে আপনার পছন্দের ফিচারগুলো আপনার ডিভাইসে থাকে না। রুট করার পর বিভিন্ন অ্যাপের মাধ্যমে আপনার ডিভাইসে পছন্দের ফিচার যোগ করতে পারেন। যেমন – Exposed Installer.

২.ব্যাটারি লাইফ বুস্ট :

রুট করার আরেকটি সুবিধা হলো আপনি ডিভাইসের ব্যাটারি লাইফ বুস্ট করতে পারবেন। সেটসিপিইউ (setcpu) অ্যাপটি দিয়ে আপনি আপনার ডিভাইসের cpu ডাউনক্লকও করতে পারেন। এতে আপনার ডিভাইসের ব্যাটারি লাইফ বুস্ট হবে।

৩.ডিভাইস স্পিড বুস্ট :

রুট করার সবচেয়ে মজার বিষয় হলো ডিভাইসের স্পিড বাডানো । সেটসিপিউ (Setcpu)এই অ্যাপটির মাধ্যমে আপনি আপনার ডিভাইসের Cpu ওভারক্লক করে আপনার ডিভাইসের স্পিড বুস্ট করতে পারবেন!!

৪.Ads block সুবিধা :

Apps এ  এড অনেক বিরক্তি জনক। কোন অ্যাপ ব্যবহারের সময় বার বার এডগুলো বিরিক্ত করে।
রুট করার মাধ্যমে আপনি অ্যাপের মধ্যে অ্যাড ব্লক করতে পারবেন!! বিভিন্ন অ্যাপ যেমন – AdFree, Adblock Plus, Ad Away – এসব অ্যাপ আপনার ডিভাইসের অ্যাপগুলির অ্যাড ব্লক করে দিবে!!

৫.ইন্টারনেট স্পিড : 

আপনার ডিভাইসটি রুট করার মাধ্যমে ভাল মানের ইন্টারনেট স্পীড পেতে পারেন!! 
এটি রুট করার আরেকটি সুবিধা।রুট করার ডিভাইসে ফোনের Cache বেশীক্ষণ অবস্থান করতে পারে না।
যা ইন্টারনেট স্পিড বাডায়।

এছাডাও রয়েছে ,প্রি-ইন্সটলেড অ্যাপ ডিলিট করা,কাস্টম রম সহ Backup করার সুবিধা পাওয়া যায়।

রুট করার অসুবিধাও রয়েছে। না জেনে মোবাইল রুট করবেন না।আপনারা যদি চান তাহলে রুট করার অসুবিধা নিয়ে Blog লিখবো।

আজ যাচ্ছি তবে যাচ্ছি না।সামনে নতুন কিছু নিয়ে আসছি!  সাথে থাকুন।

Post a Comment

0 Comments