জীবনে সুখী হবার শ্রেষ্ঠ উপায়!!

জীবনে সুখী হওয়ার শ্রেষ্ঠ উপায়।

জীবনে সুখী হতে আমরা সবাই চাই।কিন্তু সুখী জীবন কিভাবে লাভ হবে অনেকেই জানিনা।কেউ কেউ সুখী জীবন লাভ করার জন্য ভুল পদ্ধতি অনুসরণ করে।ফলে সুখী হওয়ার পরিবর্তে সে আরো দুঃখ কষ্টে ভোগে।

জীবনে সুখ লাভ করার শ্রেষ্ঠ উপায় হলো নিজেকে চেনা।নিজের কর্ম পদ্ধতি কি জানা।সে অনুসারে কাজ করলে জীবনে সুখ লাভ হবে।নতুবা সুখ লাভ করা সম্ভব নয়।

মন মানসিকতা একটু পরিবর্তন করলেই জীবন টা কিন্তু খুব সুখের হবে।
কেউ গান শোনে,সিনেমা দেখে,নাটক দেখে,পর্ণভিডিও দেখে সুখ লাভ করতে চায়। কেউ গজল শোনে,ওয়াজ শোনে,কেরাত শোনে।ইসলামিক ভিডিও দেখে সুখ লাভ করতে চায়।কিন্তু সুখ রয়েছে আল্লাহর হুকুম পালনের মধ্যে।সুখের মালিক আল্লাহ।তিনি যাকে সুখে রাখেন সেই সুখ লাভ করবে।যে আল্লাহর হুকুম অনুযায়ী নিজের জীবনকে পরিচালনা করবে আল্লাহ তাকে দুনিয়াতেও সুখে রাখবেন।আখিরাতেও সুখে রাখবেন।

কেউ জীবনটাকে আল্লাহ তায়ালার হুকুম অনুযায়ী পরিচালনা করে জান্নাতের পথে এগোচ্ছো।কেউ জীবনটাকে গুনাহের কাজে ব্যয় করে জাহান্নামের পথে এগোচ্ছে।

যদি কেউ ইচ্ছা করে তবে সে বাস্তব জগতে এবং ইন্টারনেটের এই রঙ্গিন জগতেও গুনাহমুক্ত থাকতে পারবে।আমার বন্ধুদের অবস্থা দেখে আমার খুব কষ্ট হয়।তারা উদভ্রান্তের মতো ঘুরছে।তাওবা ছাড়াই যদি মারা যায় তারাতো জাহান্নামে নিক্ষিপ্ত হবে।

একটু যদি কেউ চিন্তা করে আমাকে তো দুনিয়া ছেড়ে পরপারে চলে যেতে হবে। তাহলে কেন আমি গান শুনবো? কেন আমি সিনেমা দেখব? কেন আমি অবৈধ ভালোবাসার পিছনে ছুটে জীবনটাকে নষ্ট করব? আমাকে তো আমার আল্লাহ সৃষ্টি করেছেন তাঁর এবাদত করার জন্য। কেন আমি ইবাদত বিহীন জীবনটাকে কাটাব।

তিনি আমার জন্য পরপারে জান্নাত রেখেছেন। আমি যখন জান্নাতে যাব তিনি জান্নাতি হুরদের সাথে আমার বিবাহ দিবেন। জান্নাতে আমার বাসর হবে। আমাকে জান্নাতের বিশাল বাড়ি দান করবেন। ঝরনা দান করবেন। আমার জন্য থাকবে সেবক আরো থাকবে দাস-দাসী। কত সুন্দর একটি জীবন দান করবেন।

তাহলে কেন এই দুনিয়ার ভোগবিলাসে মত্ত হয়ে পরকালকে হারাব। দুনিয়ার জীবন তো অতি অল্প। আখিরাতের তুলনায় অতি অল্প। আখিরাতে তো আমাকে চিরকাল থাকতে হবে।সেখান থেকে তো কেউ ফিরে আসতে পারবে না। যদি আমি পরকালে শাস্তির মধ্যে পড়ে যায় তাহলে তো কেউ আমাকে বাঁচাবে না।

আমাকে বাঁচাবে শুধু তো আমার  নেক আমল। তাহলে কেন নেক আমলের প্রতি আমি এত উদাসীন হয়ে রয়েছি।কেন আমি এমন করছি।কেন নেক আমল করে জান্নাত কে সাজাচ্ছি না। আমাকে তো কেউ আমার জান্নাত সাজিয়ে দিবে না। আমাকেই তো আমার জান্নাত সাজাতে হবে। তাহলে যদি আমি উদাসীন হয়ে থাকি পরকালে তো আমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যাব।


এরকম যদি কেউ ভাবে তার জীবনটা পরিবর্তন হয়ে যাবে।সে জীবনে সুখ লাভ করবে।দুনিয়াতে এবং আখিরাতে।তাই জীবনে সুখ লাভ করতে চাইলে আমাকে আল্লাহর হুকুম অনুযায়ী জীবন পরিচালনা করতে হবে।নতুবা  নিজের মন মতো চলে সাময়িক কিছু সুখ লাভ হবে।পরবর্তীতে আবার অন্তর অস্থিরতায় ভুগবে।আর পরকালে কঠিন শাস্তি ভোগ করতে হবে।

Post a Comment

0 Comments