আপনি একজন সফল ব্লগার হতে পারবেন কিছু গুরুত্বপূর্ণ গাইডলাইন


blog_blogger

ব্লগিং সাম্প্রতিক সময়ের একটি শক্তিশালী মিডিয়া। আর এ মিডিয়াটি এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে ব্লগারগণ।আর এই ব্লগিংয়ের মাধ্যমেই ব্লগাররা প্রতিনিয়ত মানুষকে জানিয়ে যাচ্ছে নানা রকম তত্ত্ব, তথ্য, ব্যাখ্যা, বিশ্লেষণ। এমন অনেকেই রয়েছেন যারা সফল ব্লগার হওয়াটাকে জীবনের লক্ষ্যে পরিণত করেছেন। কারণ ব্লগিংয়ের মাধ্যমে শুধু অর্থ উপার্জন নয়, বিপুল সম্মানের অধিকারীও হওয়া যায়।

তাই ক্যারিয়ার হিসাবে ব্লগিংয়ের চাহিদাও এখন গগনচুম্বী। তবে একজন সফল ব্লগারতো চাইলেই হওয়া যায়না, এজন্য চাই অধ্যবসায়। এজন্য আপনাকে বিভিন্ন নামি-দামী ব্লগ সাইটগুলির ব্লগ পড়তে হবে। আর এসব সাইটের ভালোমানের ব্লগারদের লেখার ধরণ, কৌশল ইত্যাদি আপনাকে অনুসরণ করতে হবে।

একজন সফল ব্লগারকে সবসময় নতুন কিছু শিক্ষার মানসিকতা থাকতে হবেঃ

আমি সবসময় নতুন কিছু শিখতে প্রস্তুত এধরনের মানসিকতা আপনার মাঝে থাকতে হবে। অর্থাৎ একজন সফল ব্লগারও নিয়মিত শিক্ষার্থীর ভুমিকা পালন করে থাকে। আমি ব্লগিং করার পাশাপাশি প্রতিনিয়ত ছোট, মাঝারি বড় বিভিন্ন ব্লগারদের ব্লগ পড়ে থাকি এবং প্রতিনিয়ত তাদের কাছ থেকে নতুন কিছু শিখছি এর ফলে আমার যেমন অভিজ্ঞতা বৃদ্ধি পাচ্ছে পাশাপাশি ব্লগিং সেক্টরেও আমি বেশ ভালো ভুমিকা পালন করতে পারছি। মনে রাখবেন জ্ঞানের বিকল্প কিছু নেই। এই আকাঙ্ক্ষার সুপ্ত বীজটি যদি আপনি জাগ্রত করতে পারেন তবে আপনি সহজেই সফলতার স্বাদ পাবেন এ ব্যাপারে আমি নিশ্চিতভাবে বলতে পারি।

একজন দক্ষ লেখক হিসেবে নিজেকে প্রকাশ করতে পারবেনঃ
একজন দক্ষলোক তার তার লেখনীর জোরে তার নিজস্ব মতবাদ প্রচার করতে পারে খুব সহজে। একটি লেখা যত সহজে মানুষকে আকর্ষণ করতে পারে, আর অন্য অনেক কম মাধ্যম আছে, যার এরকম শক্তি আছে। যদি নিয়মিত ব্লগিং করেন, তাহলে একসময় দক্ষ লেখক হিসেবে নিজের একটি পরিচিতি তৈরি করতে পারবেন। লেখালেখির মাধ্যমে তখন আপনার আয়ের সুযোগও তৈরি হয়ে যাবে।

গ্রামারের ভুলঃ  আমরা বাঙালি আর আমাদের মাতৃভাষা বাংলা। কিন্তু বাংলা ভাষাই আমরা ঠিকঠাক আয়ত্ত করতে পারিনি। এখন অনেক বাংলা কথা শুনি জেগুলা শুনলে মাথা ঘুরান্টি মারে আর ডিকশনারি খোঁজা লাগে কথাটির মানে খুজতে গেলে। ঠিক তেমনি আপনি যখন কোন ইংরেজি পোস্ট দিবেন আপনার ব্লগে তখন আপনার লিখা বাঙ্গালি কম ফরেনার বেশি পড়বে। তাই যতদূর সম্ভব চেষ্টা করবেন আপনার লেখা যেন আন্তর্জাতিক মানের হয় এতে করে আপনার ভিজিটির বাড়বে। আর ফ্রি ফ্রি আপনার ব্লগের মার্কেটিং হয়ে যাবে।

যারা সঠিক মানসিক নিয়মানুবর্তিতা করেছেন তারা আরো অর্থ উপার্জন করে, তাদের সহকর্মীদের তুলনায় তাদের দক্ষতা আরও প্রসারিত করে, কর্মক্ষেত্রে উচ্চতর পদমর্যাদাকে উপভোগ করে, আরও সম্মান প্রদান করে এবং আরও অর্থপূর্ণ গঠন করে পেশাদার এবং ব্যক্তিগত সম্পর্ক।

শেষ কথাঃ সবশেষে আমি আবারো আপনাদেরকে বলবো, যখন লিখবেন তখন একজন ভিজিটরের স্থানে দারিয়ে কল্পনা করে লিখবেন। আপনি যদি ব্লগের ভিজিটরদের ভালো মানের লিখা উপহার দিতে পারেন তবে দেখবেন এমনিতেই আপনার ব্লগের ভিজিটর বেড়ে যাবে। আর লিখার সময় ভালো করে সেই বিষয়টির উপর স্টাডি করে নিবেন তারপর লিখবেন।

আর কথা না বাড়িয়ে আজকের মত এখানেই শেষ করছি। পরবর্তীতে আবার কোন লিখা নিয়ে হাজির হব ইনশাআল্লাহ্‌।

Post a Comment

0 Comments