Home / Domain Hosting / ডোমেইন হোস্টিং কেনার পূর্বে অবশ্যই মনে রাখবেন – যদি প্রতারিত হতে না চান!

ডোমেইন হোস্টিং কেনার পূর্বে অবশ্যই মনে রাখবেন – যদি প্রতারিত হতে না চান!

ভাবুনতো বন্ধুরা আপনার সাথে মেলে করে কিনা। অনলাইন ব্যবসা শুরু করব বিজনেস এর অনলাইন আইডেন্টিটি দরকার এমনটা ভাবলেন। আবার চিন্তা করলেন ব্লগ তৈরি করব অনলাইনে একটা ভালো ক্যারিয়ার গড়ব! এসব ভাবলেন এবং চলে গেলেন ডোমেইন-হোস্টিং কিনতে।

করিম ভাই, জব্বার ভাই, তমুক ভাইয়ের কম্পানি ১০০০ থেকে ১৫০০ টাকায় দিচ্ছে হোস্টিং সাথে ডোমেইন ও এক বছর! আর কি লাগে তাইনা। তো আপনি শুরু করে দিলেন এসব ভেবে করিম ভাই – জব্বার ভাইয়ের সাথে হ্যান্ডশেকিং ব্যাস। আপনার এখন ওয়েবহোস্টিং দুটোই আছে ওয়েবসাইট ও আছে কিছুদিন চলে যাবার পর শুরু হলো ঝামেলা। আজকে হলো হ্যাক, কালকে ফাইল পাওয়া যায় না, সার্ভার স্লো, আপনিতো রেগে ফায়ার কিন্তু অনেকগুলো ব্যাপার আপনি জানতেন না। হিডেন কিছু শর্ত ছিল হয়তো বা এমন কিছু আছে যেটার ফলে আপনি এখন পারছেন না আপনার সার্ভার টিকে মুভ করতে বা ডোমেইন টিকে পেতে। আপনি যদি এক্সপেরিয়েন্স করে না থাকেন অর্থাৎ এখনো ডোমেইন-হোষ্টিং কিনেননি সামনে ওয়েবসাইট করবেন, বিষয়গুলো জানতে চান তাহলে আপনার জন্য এই আর্টিকেলটি।

ডোমেইন হোস্টিং

আমি আজ আলোচনা করবো ডোমেইন এবং হোস্টিং কেনার আগে যে বিষয়গুলো আপনার জানা প্রয়োজন তা নিয়ে। অনেক সময় মনে করি যে আমরা একটা হোস্টিং কিনবো সিম্পল। সিকিউরিটি আসল ব্যাপারটা! দুটো জিনিস মিলে একটা ওয়েবসাইট হয় যেমন ডোমেইন হোস্টিং।

হোস্টিং এখানে ফিজিক্যাল ফাইলগুলো রাখা হয় ওয়েবসাইটের যেটা আমাদেরকে দেখান হয় ওই নামটা মাধ্যমে ডোমেইন হচ্ছে একটা ওয়েব সাইটের নাম যেটার মাধ্যমে আমরা একটা ওয়েবসাইট দেখতে পাই। যেটা কোন একটা ওয়েব সার্ভারে হোস্টেড থাকে যেটা একটা কম্পিউটার। যারা নতুন যখন ওয়েবসাইট তৈরি করে আমরা হেস্টিং কিনি এবং দেখা যায় যে হোস্টিং এর সাথে ১ টি ডোমেইন ফ্রী এক বছরের জন্য। অনেক সময় দেখা যায় যে দুটোকে খুবই কম দামে আমাদেরকে দেয়া হচ্ছে তো আমরা সস্তার তিন অবস্থা অনেকে বলেনা, আমরা চিন্তা বিবেচনা না করেই নিয়েফেলি। এবং আমরা অনেক সময় দেখা যায় যে আমাদের হোস্টিং টা পছন্দ হচ্ছে না। কোন কারণে দেখা যাচ্ছে তাদের অনেক হিডেন কন্ডিশন ছিল যেটা আমরা জানতাম না।

এরপর যেটা ঘটে যে আমরা চাই যে হোস্টিং পাল্টাবো যখনই আমরা পাল্টাতে যাই তখন দেখা যায় যে একটা সমস্যা অর্থাত আমাদের ডোমেইনটা আমরা পাইনা বা আমাদের ডোমেনটা আমরা মুভ করতে পারিনা। তো যারা অনেক কিছু জানেননা তাদেরকে ওরা সাত পাঁচ বুঝিয়ে দিয়ে বলবে যে না এটা সমস্যা আপনার ওয়েবসাইটের সমস্যা এই বলে তারা আপনার তাদের হোস্টিংয়ে রেখে দিবে আপনাকে ডোমেইন দিবে না। সবসময় মনে রাখবেন যে একটা ওয়েবসাইট বা আপনার অনলাইনে আইডেন্টিটির সবচেয়ে বড় জিনিস হচ্ছে আপনার ডোমেইন অর্থাৎ ডোমেইনের কন্ট্রোল প্যানেল বা ডোমেইন টা আপনাকে হাতে কন্ট্রোল টা আছে কিনা সেটা জানতে হবে।

আমরা যারা ওয়েবসাইট তৈরি করি আমাদের দেশে অনেকেই তারা এই বিষয়টা জানিনা। যার ফলে যেটা ঘটে আমাদের ডোমেইনের আলাদা কন্ট্রোল প্যানেল আমাদের ওয়েবহোস্ট প্রোভাইডাররা দেয়না। যদি আমাদের কোন কারনে ধরুন ডোমেইন সার্ভিসটা পছন্দ নাও হতে পরে। যেমন প্রাইভেসি প্রোটেকশন ফ্রিতে দেয় না আবার দিলে অনেক টাকা নেয়। দেখা যায় অনেকেই অনেক আলাদা সাপোর্ট দেয় ডোমানের সাথে যেগুলো অনেক ডোমেইন প্রভাইডার কিন্তু দেয় না। তো আপনি চাচ্ছেন যে কোনো কারণে আপনি তার কাছে ডোমেইন রাখবেননা ট্রানস্ফার করে নিয়ে যাবেন আরেকজনের কাছে। আর আপনার কাছে যদি ডোমেইনের কন্ট্রোল প্যানেলটাই না থাকে তাহলে কাজটা করতে পারবেননা।

ওয়েবহোস্ট আপনি চাইলে ইচ্ছামত চেঞ্জ করতে পারবেন কিন্তু ডোমেইনের কন্ট্রোল প্যানেল যদি আপনার হাতে না থাকে তাহলে আপনি কখনোই আপনার সাইটটাকে চেঞ্জ করতে পারবেন না এবং আপনার নিজের বলতে পারবেন না। তো সবসময় মনে রাখবেন যখনই ডোমেইন এবং ওয়েব হোস্টিং কিনবেন অবশ্য আপনার ডোমেইন কন্ট্রোল প্যানেল শুরুর প্রথম দিনেই তাদের কাছ থেকে কালেক্ট করে নিবেন। এবং সেটা যেন আপনার নিজের হাতে ক্ষমতাটা থাকে যেন যখন খুশি যেকোনো ওয়েব হোষ্টিং পরিবর্তন করতে পারেন। অনেকেই বলে থাকবে যে ভাই আপনার ডোমেইন এর কন্ট্রোল পেনেল দরকার নাই আপনি আপনার হোস্টিং এর প্যানেল থেকে ডোমেইন এর সকল ইনফরমেশন চেঞ্জ করতে পারবেন। যেমন এ রেকর্ড বিভিন্ন রেকর্ড থাকে নেম সার্ভার রেকর্ড কিন্তু সেটা হচ্ছে যে আপনার স্টিল আপনি আপনার ডোমেইনের কন্ট্রোল প্যানেলের ওনার না। অতয়েব যখন হোস্টিং বা ডোমেইন কিনবেন তখন আলাদা আলাদা কন্ট্রোল পেনেল নেবেন।

যারা বান্ডেল অফার দেয় যে আপনি এই প্যাকেজটা কিনলে একটা ডোমেইন ফ্রী পাবেন তাদের সার্ভিস আমি নরমালি নেওয়াটা প্রেফার করি না। যদি আপনার সেটা একটা এক্সপেরিমেন্ট করাট জন্য না হয়। আপনি একটা ডোমেইন আলাদা কিনেন বেশি না ৮০০ থেকে ১২০০ টাকা সর্বোচ্চ হয়। এবং ডোমেইন এর আলাদা কন্ট্রোল প্যানেল নিবেন ওয়েব হেস্টিংস আলাদা নিবেন। সো এই রকম যারা সার্ভিস দেয় তাদের সাথে বিজনেস করা ভালো হবে।

শেষ কথাঃ
আসাকরি এখন বুঝতে পারছেন যে আপনাকে ডোমেইনের কন্ট্রোল প্যানেল কী। যেটা থাকলে আপনি এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় ডোমেইন ট্রান্সফার আপনার ইচ্ছামত করতে পারবেন। হোস্টিং টুডে টুমরো যে কোন সময় চেঞ্জ করতে পারবেন। যখনই কোন ওয়েবসাইট হোস্ট করবেন বা ডোমেইন কিনবেন ওয়েবহোস্টিং কন্ট্রোল প্যানেল কালেক্ট করবেন। আর্টিকেলটি যদি আপনার ভাল লাগে অবশ্যই শেয়ার করবেন এবং কমেন্ট বক্সে আপনার মূল্যবান মতামত জানাবেন ধন্যবাদ।

About Md Shamim Hosen

Leave a Reply