Home / Health Tips / রসুনের উপকারিতা ও অপকারিতা!

রসুনের উপকারিতা ও অপকারিতা!

আসসালামু য়ালাইকুম বন্ধুরা আজকের আর্টিকেলের মূল বিষয় হল রসুনের উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে। রসুন একটি মসলাজাতীয় খাদ্য উপাদান রান্নার মসলা হিসেবে রসুন এর ব্যবহার সৃষ্টির শুরু থেকে চলে আসছে। রান্নায় স্বাদকে বারানোর ক্ষেত্রে শুধু নয় রসুনের পুষ্টিগুণ রসুনকে পৌঁছে দিয়েছে মসলার অন্যতম তালিকার মধ্যে। তাই রান্নার পাশাপাশি রসুন খাদ্য স্বাস্থ্য ভালো রাখার ওষুধ হিসেবেও কাজ করে। অনেক বছর আগে থেকেই রসুন ঔষধ হিসেবে ব্যাবহার হয়ে আসছে।

রসুনের উপকারিতা

বিশ্বের প্রায় প্রতিটি জাতিই রসুনকে বিভিন্ন রোগ নিরাময়ের জন্য ব্যবহার করে আসছে। রসুনে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি এমাইনো এসিড ময়শ্চার, প্রোটিন, ফ্যাট, মিনারেল, ফাইবার এবং কার্বোহাইড্রেট। মিনারেল ও ভিটামিনের মধ্যে আছে ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, আয়রন, থিয়ামিন, নিয়াসিন, রিবোফ্লাভিন, এছাড়াও রসুনে আয়োডিন সালফার ফ্লোরিনও রয়েছে অল্প পরিমাণ। খালি পেটে রসুন খেলে বিভিন্ন রোগ দূর হওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন রোগের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা যায়। তাহলে বন্ধুরা আর দেরি নয় চলুন জেনে নেই আমরা রসুনের উপকারিতা এবং অপকারিতা সম্পর্কে।

রসুনের উপকারিতা

প্রাকৃতিক এন্টিবায়োটিক। গবেষণায় দেখা গেছে খালি পেটে রসুন খেলে এটি একটি শক্তিশালী এন্টিবায়োটিক এর মত কাজ করে। সকালে নাস্তার পূর্বে রসুন খেলে এটি আরো উপকারিতা হিসেবে কাজ করে। বিশেষ করে খালি পেটে রসুন খাওয়ার ফলে ব্যাকটেরিয়া গুলো উন্মুক্ত হয় এবং তখন রসুনের ক্ষমতার কাছে ব্যাকটেরিয়া গুলো হেরে যায় ফলে শরীরের ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া সমূহ আর রক্ষা পায় না।

অসংখ্য মানুষ যারা উচ্চ রক্তচাপে ভোগেন হয়তো অনেকেই দেখেছেন রসুন খাওয়ার ফলে তাদের উচ্চ রক্তচাপ এর কিছু উপসর্গ ভালো দেখা দেয় এ কারণে রসুন খাওয়ার ফলে তারা শরীর ভালো পরিবর্তন দেখতে পায়। খালি পেটে রসুন খাওয়ার ফলে যকৃত এবং মূত্রাশয় সঠিকভাবে নিজ নিজ কার্য সম্পাদন করে এর ফলে পেটের বিভিন্ন সমস্যা দূর হয় যেমন ডায়রিয়া। এটি হজম ও খুদা বাড়াতে সাহায্য করে। অন্যানো ঔষধের তুলনায় শরীরকে ডিটক্সিফায় করতে রসুন কর্যকারি ভুমিকা পালন করে থাকে। রসুনে প্যারাসাইট, কৃমি পরিত্রাণ, জিদ, জ্বর, ডায়াবেটিস, বিষণ্ণতা এবং ক্যানসারের মত বড় বড় রোগ প্রতিরোধ করে এই রসুন। আপনার যদি যক্ষ্মা বা টিবি জনিত কোনো রোগ ধরা পড়ে তাহলে দিনে একটি সম্পুর্ন রসুন কয়েক অংশে কেটে ভাগ করে বার বার খেতে পারেন। এতে আপনার যক্ষ্মা বা টিবি রোগ নিরাময় এ সহায়তা পাবেন। রসুন সর্দি-কাশির জন্যও ঔষধ হিসেবে খুব ভালো কাজ করে। কারণ রসুনে থাকা প্রচুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট যা সর্দি-কশি জীবানুর বিরূদ্ধে লড়াই করে।

সকালে খালি পেটে রসুন খান

সকালে উঠে ২-৩ কুয়া রসুন খান অথবা রসুন থেতো করে চা বনিয়ে খান দেখবেন বন্ধ নাকের সমস্যা থেকে মুক্তি পেয়ে গেছেন। এছাড়া নিয়ম রসুন খেলে সর্দি-কাশি আর আপনার ধারের কাছেও আসতে পারবেনা। প্রতিদিন খালি পেটে রসুন খেলে আপনার শরীরের কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করবে। বিভিন্ন পরিক্ষা জানা গেছে রোজ সকালে খালি পেটে রসুন খেলে কোলেস্টেরল মাত্রা ৯-১২ শতাংশ কমে।

রসুনের অপকারিতা

আমরা উপরে জানতে পারলাম রসুনের উপকারিতা সম্পর্কে এখন জানবো রসুনের অপকারিতা সম্পর্কে। বন্ধুরা মথায় রাখবেন যাদের বুক জ্বালা আছে তারা সাবধান রসুন খাবেন না। আলসার আছে পেটের ভিতর যদি আলসার থাকে গ্যাসট্রিক থাকে গ্যাস হয় প্রচুর পরিমাণ তাহলে রসুন খেলে কিন্তু সমস্যায় পরে জাবেন। কারণ অনেকই রসুন সাহ্য করতে পারেনা এলার্জি হয়ে যেতে পরে বমি ও পাতলা পায়খানা হতে পরে। এজন্য সাবধানতা অবলম্বন করবেন। অনলাইনে অনেকেই দেখছি লিখেছেন রসুন খালি পেটে খান কিন্তু খালি পেটে রসুন খেলে যাদের এই সমস্যা আছে তারাতো আরো সমস্যায় পরবে এজন্য আপনাদের সুবিধার্তে  বিস্তারিত লেখা।

আপনার কোনো সমস্যা মনে হলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিবেন।

শেষ কথাঃ

তো বন্ধুরা আসা করি আপনারা খুব সহজে এ আর্টিকেল থেকে জানতে পারলেন রসুনের উপকারিতা যে খালি পেটে রসুন খেলে আপনার কি কি উপকার বা অপকার হতে পরে তাই প্রতিদিন খালি পেটে কাচা রসুন খাবেন দেখবেন অনেক উপকার পাবেন এবং অনেক রোগবালা থেকে আপনি মুক্ত থাকতে পারবেন ইনশাআল্লাহ।

About Md Shamim Hosen

One comment

  1. ভালো অনেক কিছু জানতে পরলাম

Leave a Reply